ভাল্লাগসেভাল্লাগসে মাইরালামাইরালা কস্কি মমিনকস্কি মমিন সেন্টি খাইলামসেন্টি খাইলাম

মুক্তি পেল ফিফটি শেড্স অফ গ্রে-এর ৪র্থ পর্ব “ফিফটি কায়দাস অফ কোলাকুলি”

হলিউডের পর্দা কাঁপিয়ে সারা বিশ্বের তরুণদের মন জয় করে অবশেষে বাজারে চলে এলো ফিফটি শেড্স অফ গ্রে-এর ৪র্থ পর্ব “ফিফটি কায়দাস অফ কোলাকুলি” যেখানে থাকছে ঘরের স্থান বিশেষে এবং সময় বিশেষে কখন কিভাবে কোলাকুলি করবেন তার বিভিন্ন রকম কায়দা কানুন (ভিডিও সহ)। এমনকি একে সোজা কথায় সামনে-পেছনে উভয়দিক থেকে কোলাকুলির এক অদ্ভুত টিউটোরিয়াল বলা চলে। এ ব্যাপারে নির্মাতা এবং সংশ্লিষ্ট কলাকুশলীরা জানান – “ইদানিং অনেকেই কোলাকুলি করা ভুলে গিয়েছেন, ফলে মানুষের মাঝে দূরত্ব বেড়ে গিয়েছে, আমরা সবাই মিলে সেই সুদিন ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যেই এমন একটা মহৎ কাজ করলাম এবং আমরা সবাই এর অংশ হতে পেরে অত্যন্ত গর্বিত। তবে তার চেয়েও গর্বের বিষয় হলো এই পর্বে থাকছে আমাদের দেশের ডিজিটাল গর্ব আবার কারও কারও (বিশেষ করে কুল্লে ট্যাশিন্যাশন) অধিকার খর্ব করা ব্রাউন ফিশ ভাই!”

সম্প্রতি এই মুভির টিজার নিয়ে ইন্টারনেটে চলে তুমুল সমালোচনা- এ ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলে দলের প্রোডাকশন বয় করিম নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন- “সমাজের কিছু দুষ্টু চরিত্র যারা কিনা আসলে মানুষের পুটু মেরে অভ্যস্ত তারা এমন মহৎ কাজ করতে বাধা দিয়ে তাদের কুরুচির পরিচয় দিয়েছেন, আমরা এতে করে গভীরভাবে ব্যথিত হয়েছি। আরে ভাই দেখলেন না, এই টিজার দেখেইতো আমাদের অর্থমন্ত্রী বিপিএল শেষে সবার সাথে কি সুন্দর কোলাকুলি করলো! উনিতো আসলে আমাদেরকে দেখে ইন্সপায়ার্ড!” এই কথার পর উনি ইমশোনাল হয়ে গেলে আর কথা বলতে পারেননি।

ব্রাউন ফিশের পাশাপাশি এই পর্বে অভিনয় করেছেন আকাশ থেইক্কা নাইম্মা আসা ডানা কাটা পরী (যাকে “কাছে আসোনা, আরও কাছে আসোনা” বললেই কাছে যান এবং কোলাকুলির জন্য দু হাত প্রসারিত করে বুকে জায়গা করে দেন)। এক পর্যায়ে নির্মাতা আরও বলেন- “আমি অনেকদিন থেকেই ব্রাউন ফিশের কঠিন ভক্ত, এক্কেবারে কঠিন ভক্ত! কারণ তাকে আমার কাছে অনেক আগে থেকেই অত্যন্ত ‘গরম’ মনে হতো। তাই উনাকে নিয়েই করা আর কি!” কিন্তু অন্যদিকে ব্রাউন ফিশের কণ্ঠে ছিল ভিন্ন সুর। তিনি বলেন- “আমি আসলে অনেকদিন ধরেই এমন একটা কোলাকুলি মার্কা স্ক্রিপ্ট খুজতেছিলাম কিন্তু কোথাও পাইতেছিলাম না। যাই হোক, যখনই এই ভাই আমার সাথে যোগাযোগ করলেন আমি আসলে প্রথমে রাজি না হওয়ার ভান ধরেছিলাম কিন্তু পরে উনি ঘনিষ্ঠ কোলাকুলির সুযোগ আছে বললে আমি রাজি হয়ে গেলাম। এরপর কেউ জিজ্ঞেস করলে আমি কি বলবো সেটাও সাজিয়ে নিলাম”। তখন সাজিয়ে নেয়ার ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলে উনি ফিসফিসিয়ে বলেন- ” এই ধরেন তখন বলতে শুরু করলাম যে, স্ক্রিপ্টটা আসলে পছন্দ হয়েছে তাই করেছি, এই আর কি! হে হে!”

সবশেষে এই অভিনয় শিল্পী সবার উদ্দেশ্যে বলেন- “ভাই ও বোনেরা, আসুন কোলাকুলি করে একটি সুন্দর দেশ গড়ি, আশা করি সবাই ইউটিউবে গিয়ে আমার ছবি দেখবেন, ধন্যবাদ!”

বিঃদ্রঃ পীথাগোরাস একদা বলেছিলেন – “ইন্টারনেটে প্রচলিত ৯৯.৯৯% জিনিসই ভুয়া” সুতরাং যেখানে যা দেখেন তা যদি বিশ্বাস করার অভ্যাস/বদভ্যাস আপনার থেকেই থাকে তাহলে তার দায়ভার সম্পূর্ণ আপনার।

Written by বাংলার ব্যাটম্যান

It's not who you are underneath; it's how much you love "কাচ্চির আলু" that defines you.

বড়লোকি আর গরিবের বড়লোকির ১০টি আগুনের চেয়েও বেশি জ্বলন্ত উদাহরণ

ছোট গল্প : কি কলিকাল আইলো! একসময় ট্যাক্সিরে বেবি ডাকা আমরা এখন জামাই বউরে, আর বউ জামাইরে বেবি ডাকি!